শনিবার ১৫ই জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ১লা আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

শিরোনাম
শিরোনাম

উখিয়ায় নিষিদ্ধ পলিথিনের ছড়াছড়ি: হুমকির মুখে পরিবেশ ও কৃষি

শাহেদ হোছাইন মুবিন :   |   বৃহস্পতিবার, ০৭ সেপ্টেম্বর ২০২৩

উখিয়ায় নিষিদ্ধ পলিথিনের ছড়াছড়ি: হুমকির মুখে পরিবেশ ও কৃষি

ফাইল ছবি

কক্সবাজারের উখিয়ার বিভিন্ন হাট-বাজারে অবাধে বিক্রি হচ্ছে নিষিদ্ধ পলিথিন। বেশ কিছু চক্র দীর্ঘদিন যাবত এই পলিথিন ব্যাগ বিক্রি করে যাচ্ছে। এই পলিথিন ব্যাগ সহজে পাওয়ায় লোকজন এখন পাটের তৈরি ব্যাগ কিনতে আগ্রহ হারাচ্ছে। যার ফলে পরিবেশ ও কৃষি মারাত্মকভাবে হুমকির মুখে পড়েছে।

বুধবার ( ৬ সেপ্টেম্বর ২০২৩ ইং) সরেজমিনে দেখা যায়, উখিয়া সদরের দারোগা বাজার, কুতুপালং বাজার, কোটবাজার, মরিচ্যা বাজার, সোনার পাড়া বাজার, পালংখালী বাজার, থাইংখালী বাজার, বালুখালী বাজার এবং প্রত্যন্তঅঞ্চলে গড়ে উঠা মিনি বাজার গুলোর হোটেল, রেস্তোরা, মাছ-মাংস সহ প্রতিটি দোকানে রয়েছে পর্যাপ্ত পলিথিন ব্যাগ। এসব পলিথিন দিয়ে ক্রেতাদের খাদ্যদ্রব্য সহ বিভিন্ন ধরনে মালামাল সরবরাহ করে। এ ছাড়াও জীবন রক্ষাকারি ঔষধের ফার্মেসীতে রোগীদের ঔষধ নিতে ব্যবহার হচ্ছে নিষিদ্ধ পলিথিন। ফলে যার কারনে পরিবেশ মারাত্নক হুমকির শিকার হচ্ছে। এসব নিষিদ্ধ ঘোষিত পলিথিনের অধিকাংশই আসে পার্শ্ববর্তী দেশ মায়ানমার সীমান্তের বিভিন্ন পযেন্ট ব্যবহার করে সীমান্ত রক্ষীদের চোঁখ ফাঁকি দিয়ে। যা দেশে মওজুদ করে রাখে এবং কৌশলে পৌছে দিচ্ছে অসাধু ব্যবসায়ীদের হাতে। প্রতিদিন লাখ লাখ পলিথিন এসব চোরাই পথে এসে উখিয়ার হাটবাজার সয়লাব হয়ে গেলেও মাঝে মধ্যে প্রশাসনের পক্ষ থেকে দু একটা অভিযান পরিচালনা করা হলেও আবার যেই সেই চোর পুলিশের খেলার মতো হয়ে যায়।যে যার ইচ্ছা মতো এ ব্যবসাটি শুরু করে।তাই প্রশাসনের আইনী পদক্ষেপ কাজে আসে না।

উখিয়া কলেজের বাংলা বিভাগের প্রভাষক শহিদুল ইসলাম বলেন, আমরা পরিবেশ দূষণের পক্ষে নই। পলিথিন মাটির নিচে গিয়েও পচে না। এটির ব্যবহার দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। সরকার পলিথিন নিষিদ্ধ করলেও স্থানীয় প্রশাসন এটির বেচাকেনা বন্ধ করা জরুরি। আর উপজেলা প্রশাসন পলিথিন ব্যবহার না করার বিষয়ে সচেতনতামূলক সেমিনার করতে পারে। তাতে অনেকেই পলিথিন ব্যবহারের ক্ষতিকর দিকগুলো সম্পর্কে জানতে পারবে।

এদিকে জানা যায় রোহিঙ্গা ক্যাম্প কেন্দ্রীক গড়ে উঠেছে নিষিদ্ধ পলিথিন বিক্রির ব্যবসা প্রতিষ্ঠান। আর কুতুপালং এর আশপাশের এলাকার নালা,খাল-বিল, রাস্তা-ঘাট পুকুর এমন কি বাড়ির আশেপাশে পলিথিনের বিভিন্ন প্যাকেট পড়ে কৃষি জমির ব্যাপক ক্ষতি সাধন হচ্ছে। এ বিষয়ে কুতুপালং এর কৃষক রশিদ আহমদ বলেন, যে হারে পলিথিনের ব্যবহার প্রয়োজন – অপ্রয়োজনে হচ্ছে তা এখনই বন্ধ করা না হলে অল্প সময়ের মধ্যে কৃষি চাষ মারাত্মকভাবে ব্যাহত হবার আশঙ্কা রয়েছে।

পরিবেশ আন্দোলনের এক কর্মী এ বিষয়ে বলেন, পলিথিন ব্যাগ নিষিদ্ধে আইন থাকলেও এর কার্যকারিতা নেই। পলিথিন দূষণ আমাদের ভূমি, নদী-সাগর সব বিষাক্ত করছে। পরিবেশ অধিদপ্তরের এক শ্রেণির অসাধু কর্মকর্তাদের কারণে নিষিদ্ধ পলিথিন এখনো অবাধে উৎপন্ন ও বাজারজাত হচ্ছে।

চলতি বছরের সোমবার(২১ আগস্ট) দুপুরে বালুখালী এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে ৩শ ৭৫ কেজি নিষিদ্ধ পলিথিন জব্দ করেছে প্রশাসন। পরিবেশ অধিদপ্তর ও আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সহযোগিতায় পরিচালিত অভিযানের নেতৃত্ব দেন উখিয়া উপজেলা সহকারী কমিশনার(ভূমি) সালেহ আহমদ। প্রসিকিউটর হিসেবে দায়িত্বে ছিলেন পরিবেশ অধিদপ্তর কক্সবাজারের পরিদর্শক মো. মুসাইব ইবনে রহমান।

এ বিষয়ে উপজেলা সহকারী কমিশনার(ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট সালেহ আহমদ বলেন, নিষিদ্ধ ঘোষিত পলিথিন মজুদ না করার জন্য কঠোর নির্দেশ প্রদান করা হয়। তাছাড়া হর্ণ ব্যবহারে আরও সতর্কতা অবলম্বনের জন্য নির্দেশনা প্রদান করা হয়। জনস্বার্থে পরিবেশ রক্ষায় অভিযান অব্যাহত থাকবে।

পরিবেশবাদীরা বলছেন, মানুষ, প্রাণী ও পরিবেশকে রক্ষা করতে পলিথিন ও ওয়ানটাইম প্লাস্টিকের ব্যবহার বন্ধ করতে হবে। তারা বলছেন, পলিথিন নিষিদ্ধ হওয়ার পরও সারাদেশে চলছে এর রমরমা ব্যবহার।

পরিবেশের জন্য ক্ষতিকর বিবেচনা করে বাংলাদেশে ২০০২ সালে পরিবেশ সংরক্ষণ আইনের প্রেক্ষিতে পলিথিনের ব্যাগ উৎপাদন, ব্যবহার, বিপণন এবং পরিবহন নিষিদ্ধ করা হয়। তবু পলিথিনের ব্যবহার বন্ধের কোনো উদ্যোগ নেই।

গবেষকরা বলছেন, বর্তমানে পলিথিনে দূষণের মাত্রা বজায় থাকলে ভবিষ্যতের জন্য বিষয়টি কতটা উদ্বেগের, তা হয়তো আমরা অনেকেই বুঝতে পারছি না।

Comments

comments

Posted ১:৫১ পূর্বাহ্ণ | বৃহস্পতিবার, ০৭ সেপ্টেম্বর ২০২৩

dbncox.com |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

(608 বার পঠিত)

advertisement
advertisement
advertisement

আর্কাইভ

প্রকাশক
তাহা ইয়াহিয়া
সম্পাদক
মোঃ আয়ুবুল ইসলাম
প্রধান কার্যালয়
প্রকাশক কর্তৃক প্রকাশিত এবং দেশবিদেশ অফসেট প্রিন্টার্স, শহীদ সরণী (শহীদ মিনারের বিপরীতে) কক্সবাজার থেকে মুদ্রিত
ফোন ও ফ্যাক্স
০৩৪১-৬৪১৮৮
বিজ্ঞাপন ও সার্কুলেশন
01870-646060
Email
ajkerdeshbidesh@yahoo.com